আপডেট: ডিসেম্বর ৬, ২০১৭   ||   ||   মোট পঠিত ২৮ বার

মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে এগিয়ে আসুন : বিভাগীয় কমিশনার

চন্দন দাস, বাঘারপাড়া (যশোর) : মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে এগিয়ে আসুন : বিভাগীয় কমিশনারযশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার কৃষ্ণনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী আকাশী আক্তারের আজ খুশির দিন, আনন্দের দিন। বিনে পয়সায় একটি নতুন বাইসাইকেল পাওয়ায় যত আনন্দ তার। তাইতো এ দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে সহপাঠিদের সাথে উল্লাসে মেতে ওঠে সে। নারীর ক্ষমতায়ন আরো একধাপ এগিয়ে নেয়াসহ লেখা-পড়ার গতি বাড়ানোর মানসে মঙ্গলবার বাঘারপাড়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ উপজেলার বিভিন্ন স্কুলের ৯০ ছাত্রীর মাঝে বিতরণ করা হয় একটি করে নতুন বাইসাইকেল। বিনে পয়সার সাইকেল পাওয়ায় আকাশীর মত বেশ খুশি খানপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী লিজা খাতুনও। তার ভাষায় ‘স্কুলের টিফিনের সময় বাড়ি গিয়ে খাবার খেয়ে আসতে আসতে ক্লাস মিস হতো। এখন আর সেটা হবে না’। লিজার মত একই অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন খলসী আদর্শ বালিকা বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী রুকাইয়া ও সপ্তম শ্রেণীর সুলতানা খাতুনের।
মঙ্গলবার বাঘারপাড়া উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত গরীব-মেধাবী ছাত্রীদের মাঝে সাইকেল বিতরণ ও ডিজিটাল হাজিরা কাযর্লক্রমসহ কয়েকটি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া। এদিন সকাল সোয়া ১১ টার দিকে অনুষ্ঠান স্থলে পৌঁছান প্রধান অতিথি খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া ও অনুষ্ঠানের সভাপতি যশোরের জেলা প্রশাসক আশরাফ উদ্দিন। প্রথমে অতিথিদের সম্মান জানানো হয়। এরপর নব নির্মিত উপজেলা পরিষদ মঞ্চের উদ্বোধন করেন অতিথিবৃন্দ। আলোচনা সভা শেষে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি এ উপজেলার সকল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে একই সাথে ডিজিটাল হাজিরা, ই-ফাইলিং ও সততা স্টোরের উদ্বোধন, কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে অভিনন্দন পত্র বিতরণ, উপজেলার রাজস্ব তহবিল থেকে ১০০ গরীব-মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে ৪০০০ টাকা করে চেক বিতরণ, নারীর ক্ষমতায়ন আরো একধাপ এগিয়ে নেয়ার মানসে ৯০ গরীব-মেধাবী ছাত্রীদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ করেন। এ সময় ডিজিটাল হাজিরা সংক্রান্ত পাঁচ মিনিটের একটি ভিডিও প্রদর্শন করা হয়।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া বলেন, আজকের ছাত্র-ছাত্রীরাই আগামী দিনের ভবিষ্যত। একদিন তারা সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশের মুখ উজ্জ্বল করবে। দেশ এখন অনেক এগিয়ে গেছে। একদিন স্বপ্ন ছিল ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের। এখন তা বাস্তবায়ন হতে শুরু করেছে। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া বলেন, ‘তোমাদের লেখা-পড়ায় মনোযোগি হতে হবে। ক্লাস ফাঁকি দিয়ে অযথা সময় নষ্ট করা যাবে না। মাদক সমাজকে ধ্বংস করে দেয়। তাই মাদক থেকে দূরে থাকতে হবে’। মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি। বলেন এ ক্ষেত্রে অভিবাবকদের দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। সমাজ-রাষ্ট্রকে ভাল রাখতে হলে মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে। বর্তমান সরকার নারীদের উন্নয়নে কাজ করে চলেছেন উল্লেখ করে লোকমান হোসেন মিয়া বলেন, নারী নির্যাতন বন্ধে সকলকে ভূমিকা রাখতে হবে। বাল্য বিবাহ একটি সামাজিক ব্যাধি। তাই বাল্য বিবাহের বিরুদ্ধে সমাজের সকলকে সোচ্চার হতে হবে। পাশাপাশি জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতে ছেলে হোক মেয়ে হোক দু’টি সন্তানের বেশি নেয়া যাবে না। বিজয়ের মাসে দীর্ঘ এক ঘন্টা বক্তৃতার মাঝে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহীদদের স্মরণ করেন সরকারি উচ্চ পর্যায়ের এ কর্মকর্তা। অপরদিকে তিন মিনিটের সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে অনুষ্ঠানের সভাপতি যশোরের জেলা প্রশাসক আশরাফ উদ্দিন শিক্ষাথীদের ভাল মানুষ হওয়ার আহবান জানান। বলেন ‘ভাল মানুষ হতে হলে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। দূরে থাকতে হবে মাদক থেকে।
নব নির্মিত উপজেলা পরিষদ মঞ্চে অনুষ্ঠিত এ সংক্রান্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন যশোরের জেলা প্রশাসক আশরাফ উদ্দিনল। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহনাজ বেগম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মসিয়ূর রহমান, পৌর মেয়র কামরুজ্জামান বাচ্চু, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মন্জুরুল আলম, ইউপি চেয়ারম্যানদের পক্ষে রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান মঞ্জুর রশিদ স্বপন প্রমূখ। এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদেও চেয়ারম্যানবৃন্দ, বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানগণসহ ছাত্র-ছাত্রীরা। উপজেলা পরিষদের এ অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি চাড়াভিটা স্কুলে সততা স্টোরের উদ্বোধন করেন।

তথ্যসূত্রঃ Daily gramerkagoj