আপডেট: অক্টোবর ২, ২০১৭   ||   ||   মোট পঠিত ১০৫ বার

‘শুদ্ধ পণ্যে’ স্বাবলম্বী ২০০ গ্রামীণ নারী-পুরুষ

ভেজালের ভিড়ে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে নড়াইলের উজিরপুর অর্গানিক বহুমুখী সমবায় সমিতি। হাতে তৈরি কমপক্ষে ২০ প্রকার খাদ্যসামগ্রী তৈরি করে বিপণন করছে তারা। তাদের পণ্য যাচ্ছে যশোর, খুলনা, ফরিদপুর ও ঢাকায়। এ সমিতির কল্যাণে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হচ্ছে কমপক্ষে ২০০ জন গ্রামীণ নারী-পুরুষ।
নড়াইল শহর থেকে তিন কিলোমিটার দূরে উজিরপুর গ্রাম। এ গ্রামেই ২০০৬ সালে ২৫ জন সদস্য নিয়ে উজিরপুর অর্গানিক বহুমুখী সমবায় সমিতি গঠন করেন দক্ষিণ নড়াইল এলাকার খন্দকার শাহেদ আলী শান্ত। বর্তমানে সমিতির সদস্য সংখ্যা ৯৭। ভোক্তাদের হাতে বিষমুক্ত ও প্রাকৃতিক স্বাদযুক্ত খাবার তুলে দিতে শহরের আশ্রম সড়কে গড়ে তোলা হয়েছে ‘শুদ্ধ পণ্য’ নামে একটি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান। সমিতির সদস্যরা ঘরে তৈরি বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী এখানে আনেন। এখানে পাওয়া যায়: ঢেঁকিছাঁটা চাল, চালের গুঁড়ো, লাল আটা, কুমড়াবড়ি, ঢেঁকিতে বানানো আউশ ধানের চিড়া, বাড়িতে তৈরি মুড়ি, লিচু-কালিজিরা-সরিষা ফুলের মধু, সরিষার তেল, ঘি, হলুদ, খেসারি, মুগ, মসুর, ছোলা ও ছোলার ডাল ইত্যাদি।
সমিতির সঙ্গে যুক্ত মালিনি গোলদার বলেন, আমরা ঢেঁকিতে আউশ ধানের চিড়া তৈরি করি। ফলে এ চিড়ার স্বাদই আলাদা। আরেক সদস্য অনিতা বিশ্বাস বলেন, বাজারে যেসব চাল পাওয়া যায়, সেগুলো তৈরিতে ধানে ইউরিয়া দিয়ে একাধিকবার সিদ্ধ করা হয়। এ কারণে দেখতে সুন্দর হলেও স্বাদ ভালো নয়। আমরা ধান একবার সিদ্ধ করে ঢেঁকিতে চাল তৈরি করি। এ চালের স্বাদ ও গন্ধ ভালো। কুমড়ার বড়ি তৈরি করেন শান্তিলতা বিশ্বাস। তিনি জানান, বড়ি তৈরি করার সব উপকরণ তাদের সমিতি থেকে দেয়া হয়। ঘরে তৈরি এ বড়ির চাহিদা বেশি। এসব পণ্য প্যাকেটে ভরা, লেবেল লাগানোর কাজ করেন কৃপাময়ী বিশ্বাস। তিনি জানান, এতে তার প্রতি মাসে ৮-১০ হাজার টাকা আয় হয়। এভাবেই সংসারে সচ্ছলতা এনেছেন সাধনা বিশ্বাস। সংসারের কাজের পাশাপাশি তার অতিরিক্ত আয় হচ্ছে মাসে ৫-৬ হাজার টাকা।
‘শুদ্ধ পণ্য’ প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বপ্রাপ্ত ফেরদৌস সোহেল জানান, প্রতিদিনই ক্রেতারা আসছেন বিভিন্ন স্থান থেকে পণ্য সম্পর্কে জানতে এবং তারা কিনছেনও। আগামী মাস থেকে অর্ডারকৃত পণ্য বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি। সমিতি এরই মধ্যে জাতীয় পর্যায়ে পাঁচটি কৃষিমেলায় অংশ নিয়েছে জানিয়ে সদস্য খন্দকার মাকসুদ হাসান কল্যাণ বলেন, তারা আগামী আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় অংশ নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
উজিরপুর অর্গানিক বহুমুখী সমবায় সমিতির প্রশংসা করে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক শেখ আমিনুল হক বলেন, এটি অত্যন্ত ভালো উদ্যোগ। আগামীতে জাতীয় পর্যায়ে ভূমিকা রাখবে। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে ওই সমিতির সদস্যদের সার্বিক সহযোগিতা করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
খাদ্যে ভেজালের ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে জানতে চাইলে সদর হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. আলীমুজ্জামান সেতু বলেন, ভেজাল খাবার খাওয়ার ফলে আমাদের শিশুরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এর প্রভাবে শিশুর বুদ্ধিমত্তা ঠিকমতো বৃদ্ধি পায় না, ডায়রিয়া, আমাশয়, ব্রেন, কিডনি ও লিভারের সমস্যা হতে পারে।

তথ্যসূত্রঃ বণিক বার্তা