আপডেট: জুলাই ১৭, ২০১৭   ||   ||   মোট পঠিত ৭১ বার

যমেক হাসপাতালে তিন নারী ইন্টার্ণ ডাক্তার ইভটিজিংয়ের শিকার

যমেক হাসপাতালে তিন নারী ইন্টার্ণ ডাক্তার ইভটিজিংয়ের শিকারযশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিন নারী ইন্টার্ণ ডাক্তার ইভটিজিংয়ের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার দিনগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এতে অন্যান্য ইন্টার্ণ ডাক্তারদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। অভিযোগ পেয়ে হাসপাতালে টহলরত পুলিশ দুই ইভটিজারকে আটক করলেও উভয়পক্ষের সমঝোতা হলে মুচলেকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।
হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাতে ছিনতাইকারীদের হাতে দুই যুবক জখম হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। তখন তিন নারী ইন্টার্ণ ডাক্তার ওই রোগীদের ব্যবস্থাপত্র দিতে পুরুষ সার্জারি ওয়ার্ডে যান। ওই সময় আহত যুবকদের রক্ত দেয়া লাগবে বলে স্বজনদের জানান ডাক্তাররা । তখন স্বজনরা রক্ত কোথাও না পেয়ে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন আস্থাকে খবর দেন। তখন সিহাব, জাকারিয় ওরফে জিকে নামে দু’যুবক হাসপাতালে আসেন রক্ত দেয়ার জন্যে। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে তিন নারী ইন্টার্ণ ডাক্তার পুরুষ সার্জারি ওয়ার্ড থেকে জরুরি বিভাগ হয়ে ২য় তলার মহিলা সার্জারি ওয়ার্ডে যাচ্ছিলেন। ওই সময় তারা ব্লাড ব্যাংকের সামনে পৌঁছালে সিহাব ও তার বন্ধু জাকারিয় ওরফে জিকে নারী ডাক্তারদের ইভটিজিং করে। বিষয়টি হাসপাতালে কর্তব্যরত অন্যান্য ইন্টার্ণ ডাক্তাররা জানতে পারলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতি শান্ত করতে সিনিয়র ডাক্তাররা হাসপাতালে টহলরত পুলিশকে খবর দিলে তারা অভিযুক্ত দুই যুবককে আটক করে। পরে মধ্যরাতে উভয়পক্ষের সমঝোতার মাধ্যমে মুচলেকা নিয়ে যুবকদের ছেড়ে দেওয়া হয়।
এ ব্যাপারে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাক্তার একেএম কামরুল ইসলাম বেনু বলেন, অফিসিয়াল কাজে ঢাকাতে আছি। ঘটনার বিষয়ে খোঁজ খবর নিয়ে পরবর্তি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তথ্যসূত্রঃ Daily gramerkagoj