আপডেট: মে ১৩, ২০১৭   ||   ||   মোট পঠিত ৬১ বার

পাটুরিয়া ফেরিঘাটে যাত্রীবাহী বাসের দীর্ঘ লাইন

পাটুরিয়া ফেরিঘাটে যাত্রীবাহী বাসের দীর্ঘ লাইনদক্ষিণাঞ্চলের প্রায় ২১টি জেলার সঙ্গে রাজধানীর যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুট। ছোট বড় মিলে প্রতিদিন কয়েক হাজার যানবাহন পারাপার হয় এ নৌরুটে। যানবাহন ও যাত্রী পারাপারে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটের বহরে রয়েছে ছোট বড় মিলে ১৫টি ফেরি। কিন্তু স্বাভাবিক মাত্রার চেয়ে যানবাহনের কিছুটা বাড়তি চাপ থাকলেই ঘাট এলাকায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা ভোগান্তি পোহাতে হয় এ রুটে চলাচলকারী যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকদের।
শুক্রবার (১২ মে) দুপুরে সরেজমিনে দেখা যায়, পাটুরিয়া ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে এক কিলোমিটার এলাকা পর্যন্ত যাত্রীবাহী বাসের দীর্ঘ লাইন। প্রায় ২ থেকে ৩ ঘণ্টা অপেক্ষার পর ফেরির দেখা মিলে বলে জানান একাধিক পরিবহন শ্রমিক ও ফেরিঘাট এলাকা দিয়ে চলাচলকারী নিয়মিত যাত্রীরা।
বরিশালগামী হানিফ পরিবহনের যাত্রী মাহবুব আলম জানান, সকাল সাড়ে ১০টা থেকে পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় ফেরির জন্যে অপেক্ষায় রয়েছে তাদের পরিবহনটি। তবে ফেরি পারাপার হতে আরো প্রায় আধা ঘণ্টা অপেক্ষার প্রহর গুনতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
গোপালগঞ্জের কালিয়াগামী কমফোর্ট লাইনের যাত্রী জাহানারা বেগম জানান, শবে বরাতের বন্ধ থাকার কারণে পরিবারের সবাইকে নিয়ে গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছেন তারা। প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে ফেরিঘাট এলাকায় অপেক্ষায় রয়েছেন। তবে কতক্ষণ নাগাদ তারা ফেরিতে পারাপার হতে পারবেন সে বিষয়ে কোনো নির্দিষ্ট সময় জানা নেই। দীর্ঘ সময় যানজটের কারণে শিশুদের অবস্থা সবচেয়ে বেশি খারাপ হয়ে পড়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
পাটুরিয়া ফেরিঘাট শাখা বাণিজ্য বিভাগের সহকারী জেনারেল ম্যানেজার জিল্লুর রহমান জানান, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে যানবাহন ও যাত্রী পারাপারে ছোট বড় মিলে ১৩টি ফেরি চলাচল করছে। এছাড়া যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে কে-টাইপ ফেরি কুমারী ও রো রো ফেরি কেরামত আলী মেরামতে রয়েছে। পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় বাস ও ট্রাক মিলে প্রায় দু’শত যানবাহন নৌরুট পারের অপেক্ষায় রয়েছে বলেও জানান তিনি।
পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় যানবাহনের দীর্ঘ লাইন থাকলেও রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকায় যানবাহনের কোনো চাপ নেই বলে জানান ওই ফেরিঘাট এলাকার বাণিজ্য বিভাগের ব্যবস্থাপক শফিকুল।

তথ্যসূত্রঃ Daily gramerkagoj