আপডেট: এপ্রিল ২০, ২০১৭   ||   ||   মোট পঠিত ৬৫ বার

নড়াইলে উচ্ছের ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

আব্দুল কাদের, নড়াইল: নড়াইলে উচ্ছের ফলনে কৃষকের মুখে হাসিনড়াইলের নলদী ইউনিয়নের উচ্ছে পল্লীতে তৈরি হয় এক অন্য পরিবেশ। শিশু-কিশোর, নারী-পুরুষ থেকে শুরু করে সব বয়সী মানুষ কাধে কাধ মিলিয়ে উচ্ছে সংগ্রহের কাজ করেন। বিস্তীর্ণ ক্ষেতের মাঝে উচ্ছে সংগ্রহের এ দৃশ্য অন্যরকম। নলদীর ২৩টি গ্রাম এখন উচ্ছেপল্লী হিসেবে খ্যাত। প্রায় ২০ হাজার কৃষক পরিবারেও এসেছে আর্থিক স্বচ্ছলতা। এদিকে এ এলাকার উচ্ছে স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে যাচ্ছে ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায়।
চাষিরা জানান, প্রায় ২০ বছর আগে এ অঞ্চলে উচ্ছের আবাদ শুরু হয়। পরীক্ষামূলক ভাবে নলদী ইউনিয়নের কানাবিলে বিলে প্রথমে উচ্ছে করা আবাদ হয়। ফলন ভালো পেয়ে উচ্ছে আবাদের প্রতি এ অঞ্চলের কৃষকের আগ্রহ বাড়তে থাকে। বর্তমানে নলদী এলাকার ২৩টি গ্রাম মাঠজুড়ে শুধু উচ্ছে আর উচ্ছে। এমনকি বসতবাড়ির আঙিনা ও আশপাশেও উচ্ছের আবাদ করা হচ্ছে। এ বছর (২০১৬-১৭ মওসুম) ২১০ হেক্টর জমিতে ৮৭৫ মেট্রিক টন উচ্ছের ফলন হয়েছে। অথচ এক সময় শুষ্ক মওসুমে এসব জমি অনাবাদি পড়ে থাকত।
কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর নড়াইলের উপ-পরিচালক শেখ আমিনুল হক বলেন, উচ্ছে কাঁচা তরকারি পাশাপাশি ওষুধি গুণ রয়েছে। ডায়াবেটিক নিয়ন্ত্রণ ও বসন্ত রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা রয়েছে। এ বছর ২১০ হেক্টর জমিতে ৮৭৫ মেট্রিক টন উচ্ছের ফলন হয়েছে।

তথ্যসূত্রঃ Daily gramerkagoj