আপডেট: মে ৬, ২০১৪   ||   ||   মোট পঠিত ২৬৫ বার

লিচু শুন্য যশোরে লিচু গ্রাম, চাষিদের মাথায় হাত !

যশোরের লিচু গ্রামে এবার হাহাকার, লিচু চাষিদের মাথায় হাত। কারণ অন্য বছর সেখানে গাছে গাছে থোকায় থোকায় লিচু সোভা পায় এবার সেখানে লিচুর বদলে আছে শুধু শিষ। যা ২-১ টা লিচু আছে তাও হয় পোকা, নষ্ট না হয় শুকনা। কিন্তু দেখার কেউ নেয়, কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর নিশ্চুপ, কেউ কিছু জানেই না। যদিও খরা, অনাবৃষ্টি এবং পোকার আক্রমনের কারণে এবার লিচুর ফলন হয়নি। যশোর সদর উপজেলার মধুগ্রাম, বোলপুরকে লিচুগ্রাম বলা হয়। আশেপাশের বাহাদুরপুর, নদাগা, ডাকাতিয়াসহ আরো বেশ কয়েকটি গ্রাম লিচুচাষের জন্যে বিখ্যাত হলেও প্রাকৃতিকি দুর্যোগের কারণে এবার যশোরে লিচু চাষে বিপর্যয় ঘটেছে। লিচুর মৌসুমে যেখানে একেকজন চাষী লাখ লাখ টাকার লিচু বিক্রি করে থাকেন এবার সেখানে লিচু নিয়ে তাদের মধ্যে কোন চাঞ্চল্যই নেই। বরং বিরাজ করছে হতাশা। চাষীরা বলছেন- খরা, অনাবৃষ্টি এবং পোকার আক্রমনের কারণে এবার লিচুর ফলন হয়নি বললেই চলে। আবার যেসব গাছে কিছু লিচু হয়েছে তাও এখন হয় ঝরে পড়ছে, না হলে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এজন্য এবার তারা আর্থিক ভাবে চরম ক্ষতির শিকার হবেন। এদিকে প্রায় সবচাষীই অভিযোগ করেছেন- লিচু চাষে যশোরে এবার এমন বিপর্যয় ঘটলেও এ নিয়ে কৃষি বিভাগের কোন মাথা ব্যথা নেই। তারা কোন খোঁজ খবরও নেয়নি।


যশোর সদর উপজেলার মধুগ্রামুর এবং বোলপুর অঞ্চল লিচু চাষের জন্য বিখ্যাত। এ অঞ্চলে দীর্ঘদিন ধরে লিচুর চাষ হয়ে আসছে। হাজার হাজার লিচু গাছ রয়েছে এ অঞ্চলে। বলা হয়ে থাকে এই গ্রামগুলিতে যার কিছু নেই তার অন্তত একটা লিচু গাছ আছে। এখানকার লিচু স্থানীয বাজার, খুলনার বাজার দখল করে থাকে সারা মৌসুম। রাজধানী ঢাকা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে লিচু যায় এখান থেকে। এজন্য মৌসুম আসলেই এ অঞ্চলে লিচু নিয়ে কৃষকদের মধ্যে অনেকটা উৎসব চলে।


যশোরের লিচু বাগান মালিক রবিউল ইসলাম আকাশ বলেন আমার যেসব গাছে কিছু লিচু হয়েছে খরা আর গরমে তাও ফেটে ও ঝরে পড়ে যাচ্ছে। যেগুলো ভাল আছে তা ছিড়লে ভিতরে পোকা পাওয়া যাচ্ছে । আবার কোন কোন টা ভিতর থেকেই নষ্ট হয়ে গেছে। যা বিক্রি হবে না। অন্যবার যেখানে ১০ থেকে ১২ লাখ টাকার লিচু বিক্রি হত সেখানে এবার ৫০ হাজার টাকার লিচুও বিক্রি হবে না।


বাগান মালিক সিদ্দিক মোল্লা বলেন সবকিছু মিলে লিচু চাষ করে এবার তাদের মাথায় হাত উ েছে। উচ্ছাসের পরিবর্তে মধুপুর-বোলপুর এলাকায় বিরাজ করছে হতাশা ।


কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শেখ হেমায়েত হোসেন বলেন এ ব্যাপারে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর যশোরের কর্মকর্তারা বলেন, লিচু চাষে এমন সমস্যা হয়েছে বলে তাদের জানানেই। তবে যেসব সমস্যার কথা তিনি এখন শুনছেন তা প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণেই হয়েছে।

তথ্যসূত্রঃ