আপডেট: জুন ২৩, ২০১৬   ||   ||   মোট পঠিত ১৮০৫৬ বার

সংসদে যশোরকে সিটি কর্পোরেশন ও বিভাগ দাবি করলেন এমপি কাজী নাবিল

সংসদে যশোরকে সিটি কর্পোরেশন ও বিভাগ দাবি করলেন এমপি কাজী নাবিলঅবিভক্ত বাংলার প্রথম জেলা শহর যশোরকে বিভাগ ঘোষণা ও প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত সিটি কর্পোরেশন বাস্তবায়নের জোর দাবি জানিয়েছেন যশোর-৩ সদর আসনের এমপি কাজী নাবিল আহমেদ।

বুধবার জাতীয় সংসদে বাজেট বক্তৃতায় এ দাবি জানান তিনি। একইসাথে তিনি যশোর বিমানবন্দর ও স্টেডিয়ামটিকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীতকরণ এবং পর্যটন কর্পোরেশনকে দিয়ে পাঁচ তারকামানের একটি মোটেল নির্মানের দাবি জানান।

বাজেট বক্তৃতায় তিনি বলেন, বাংলায় ব্রিটিশ ভারতের প্রথম জেলা ও দ্বিতীয় পৌরসভা যশোর যে প্রভাববলয় তৈরি করেছিলো কালের বিবর্তনে তা আজ ¤্রয়িমাণ। এজন্য যশোরবাসীর মনে হতাশা ও ক্ষোভ বিদ্যমান। এ হতাশা ও ক্ষোভ নিরসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্টি কামনা করেন তিনি।

যশোরের সার্বিক উন্নয়নে তিনি আরো কয়েকটি দাবি উত্থাপন করে বলেন, শহরের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত এক কালের খরস্রোতা ভৈরব নদ দখল বেদখল এবং ব্যক্তি বিশেষের পাটায় পাটায় ভাগ হয়ে এটা আজ মৃত প্রায়। নদীর সীমানা চিহ্নিত করে ড্রেজিং-এর মাধ্যমে নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে পারলে নওয়াপাড়া নৌবন্দরের কার্যক্রম যশোর পর্যন্ত বিস্তৃত হতে পারে। যা অর্থনীতিতে আনবে অনেক ইতিবাচক পরিবর্তন। যশোরবাসীর জন্যে নির্মল বিনোদনের ব্যবস্থা হিসেবে ভৈরবের তীরে অবস্থিত দড়াটানা ও তৎসংলগ্ন এলাকার সৌন্দর্যকরণের জন্য জেলা প্রশাসন ও মন্ত্রণালয়কে একাধিকবার বলা হয়েছে। এ বিষয়ে এবং শহরের রাস্তা প্রশস্তকরণের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। দেশের বৃহত্তর স্থলবন্দর বেনাপোল। কোটি কোটি মানুষের চাহিদা পূরণ করে এই বন্দর। কোনো পণ্যবাহী বা গরুবাহী ট্রাক যশোরে চাঁদা না দিয়ে দেশের কোথাও যেতে পারে না। এক্ষেত্রে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত এবং আদেশকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখানো হয়েছে। ব্যবসায়ী ও আমাদানীকারকগণ বেনাপোল বাদ দিয়ে অন্য বন্দরের দিকে ঝুকছেন। এর সুদূরপ্রসারী নেতিবাচক প্রভাব যশোরের অর্থনীতিতে পড়বে বলে তিনি আশঙ্কা ব্যক্ত করেন।

তিনি আরো বলেন, যশোরবাসীর নিরলস পরিশ্রম ও চেষ্টার ফলে শাক-সবজি, ফুল, খেজুর গুড়, নার্সারী ব্যবসা এবং মিঠা পানির মাছ উৎপাদনে আমরা প্রথম স্থান অধিকার করে আছি। কর্মসংস্থান তৈরির জন্য একাধিক অর্থনৈতিক জোন বিশেষ করে দেশী ও বিদেশী উদ্যোক্তাদের জন্য তৈরি, একটি কৃষি বিশ^বিদ্যালয় স্থাপন, পর্যাপ্ত সংখ্যক কোল্ড স্টোরেজ নির্মাণ, রাস্তাঘাট তৈরি ও সংষ্কার, গ্রামে গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগ, স্কুল-কলেজের নতুন নতুন ভবন নির্মাণ ও সংস্কার এবং সেই সঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী ও যশোর শিক্ষা বোর্ডকে ভালো ফলাফলের দিকে গুরুত্ত্বারোপ এবং এমপিওভুক্তকরণের দিকে দৃষ্টি দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।

ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু হয়ে যশোর পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণের প্রকল্প হাতে নেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান তিনি।

তথ্যসূত্রঃ Gramerkagoj