এশিয়ার বৃহত্তম বট গাছ

অনেকই হয়ত জানেননা যে এশিয়ার বৃহত্তম বট গাছটা আমাদের দেশেই রয়েছে। ঝিনাইদহের মল্লিকপুর গ্রামে এটির অবস্থান। এ বটগাছের যে বিশাল ব্যাপ্তি তা ক্যামেরার ফ্রেমে ধরা সম্ভব নয়। উপর থেকে হেলিক্পটার বা স্যাটেলাইট থেকে তুললে সেটা সম্ভব।
১৮ বিঘা জমির উপর এর বর্তমান বিস্তৃতি। সরকার তথা বনবিভাগের উদ্যোগে এর চারপাশ দিয়ে পাচিল দিয়ে ঘেরা হয়েছে, প্রকৃতপক্ষে পাচিল দিয়ে এর বৃদ্ধি ও বিস্তৃতিকে রহিত করা হয়েছে। প্রাচীর এর বাইরেও গাছের অংশবিশেষ রয়েছে যা অত্যন্ত অবহেলায় রয়েছে। স্থানীয় অনেকেই এর থেকে ডালপালা কেটে নিয়ে যাচ্ছ জ্বালানীর কাজে।
গাছের অতি পুরাতন ডালে অর্কিড ও ফার্ন জাতীয় উদ্ভিদ জন্মে আছে। এছাড়া ডালে আছে বিভিন্ন ছত্রাক ও লাইকেন জাতীয় উদ্ভিদ। বটগাছের ফাকে ফাকে বনবিভাগ অন্যান্য গাছ ও লাগিয়েছে।
গাছটি এখন দেখলে অনেকগুলো বটগাছের সমষ্টি মনে হবে ।কিন্তু একসময় একটির সাথে আরেকটির সংযোগ ছিল ডাল অথবা ঝুরির সাহায্যে। কথা হল স্থানীয় বয়স্ক একজন লোকের সংগে।
জানতে চাইলাম গাছের বয়স কত হবে। তিনি জানালেন এই গাছটা তার দাদা ও এরকম দেখেছেন। অর্থাৎ নিঃসন্দেহে অতিপুরাতন এটি। তিনি আরও জানালেন মাঝে মাঝে এখানে শুটিংএর জন্য অনেক পার্টি আসে। পিকনিক করতে ও অনেকে এখানে আসে।
এখানে যেতে চাইলে যশোরের বারোবাজার বাজার থেকে ভ্যান বা নসিমনে মল্লিকপুর বাজারে যেতে হবে। দুরত্ব মাত্র ১২ কি.মি.।